1. abusalehmdraihan1151@gmail.com : আবু সালেহ মোহাম্মদ রায়হান : আবু সালেহ মোহাম্মদ রায়হান
  2. admin@bijoyer-alo.com : admin :
  3. asadma1989@gmail.com : Bijoyer Alo :
  4. maasad44@gmail.com : asad :
  5. babul01713@gmail.com : babul :
  6. sheikhf492@gmail.com : Forid :
  7. videomidea.kabir@gmail.com : kabir :
  8. armanik76@gmail.com : manik :
  9. Mizanurrahman682560@gmail.com : Mizanur : মিজানুুর রহমান
  10. onikkhan300@gmail.com : onik :
  11. s.reza861@gmail.com : reza :
  12. md.sazu4@gmail.com : sazu :
নীলফামারীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে নির্যাতন - বিজয়ের-আলো.কম
বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:১৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
হরিণাকুণ্ডুতে বিভিন্ন অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা মুরাদনগরের কোম্পানীগঞ্জ বাজারে গন্তব্যে পৌঁছতে অল্প ভাড়ায় একমাত্র নৌকাই যেন আশার আলো  বীরগঞ্জে বীর- মুক্তিযোদ্ধার জমির সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা  কুড়িগ্রামে আদম আলী হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড কালাইয়ে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে আগাম আলু চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকেরা বেনাপোলে বিজিবির হাতে ট্রাক ও মাদকসহ ড্রাইভার আটক বেনাপোল কাগমারি গ্রামের শান্ত ফেন্সিডিল সহ পুলিশের হাতে গ্রেফতার দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচন : দ্বিতীয় দিনেও মনোনয়নপত্র কিনেছেন সংবাদকর্মীরা হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা শিবগঞ্জে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা

নীলফামারীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে নির্যাতন

বিজয়ের-আলো ডেস্কঃ
  • প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০
  • ৬৩
যৌতুকের জন্য গৃহবধু সবুজা আক্তারকে শারিরিক নির্যাতনের পর গাঁয়ে বিভিন্ন জায়গায় ক্ষত বিক্ষত করে মরিচের গুরা ও লবন শরীলে ছিটিয়ে দেন ও ধারালো দাঁ দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে বাম পায়ের তালুর উপরে চোট মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে দেন তার স্বামী, দেবর,ও শাশুরী। ঘটঁনাটি ঘটেছে (১০ই আগস্ট)সোমবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে, নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ইউনিয়নের পানিয়ালপুকুর কাচারীপাড়া গ্রামে।। থানার এজাহার সূএে জানা যায়,দেড় বছর আগে পানিয়ালপুকুর কাচারীপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে সবুজা আক্তারের সাথে একই গ্রামের হাসিবুল ইসলামের ছেলে আব্দুর রউফের বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েকমাস পর সবুজার স্বামী, শশুর ,শাশুরীসহ শশুরবাড়ির লোকজন যৌতুকের দাবিতে গৃহবধু সবুজাকে শারিরিক ভাবে নির্যাতন করতে শুরু করে। সর্বশেষ সোমবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে সবুজার স্বামী ও শশুর শাশুরী যৌতুকের দাবিতে সবুজাকে মারধর শেষে গায়ে মরিচের গুড়া ও লবন ছিটিয়ে দেয়,ও ধারালো দাঁ দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে বাম পায়ের তালুর উপরে চোট মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে দেন, সবুজার বাবা মা লোক মারফত মারামারির কথা শুনে এসে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে কিশোরগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। সরেজমিনে কিশোরগঞ্জ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় ওই গৃহবধু ব্যাথার যন্ত্রনায় ছটফট করছেন, এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন,যৌতুকের জন্য আমার স্বামী,শশুর, শাশুরী সোমবার সন্ধ্যার দিকে আমাকে প্রচন্ড মারধর করে আমার কোলের আট মাস বয়সী শিশু সন্তানকে কেঁড়ে নিয়ে আমার কাটা শরীরে মরিচের গুড়া ও লবন ছিটিয়ে দিয়েছে,এবং আমাকে তারা নিষ্টুর ভাবে অত্যাচার করেছে,তাই আমি আইনের কাছে তাদের বিচার চাই। সবুজার বাবা শফিকুল ইসলাম সাংবাদিক দের বলেন,,, বিয়ের পর আমার জামাই রউফ যৌতুকের জন্য প্রায়ই আমার মেয়েকে মারধর করত। সর্বশেষ গত একমাস আগে রউফ আমার মেয়েকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলে আমি স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে আমার মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসি। কিন্তু পরে আমার জামাই বিভিন্ন কৌশলে আবারো আমার মেয়েকে তাঁর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন শুরু করেন। নিতাই ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দুল খালেকের সাথে কথা বললে তিনি ঘঁটনার বিষয় স্বীকার করে বলেন, এর আগে আমি ওই গৃহবধুকে নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষার জন্য মেয়েটিকে তাঁর বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছিলাম। কিশোরগঞ্জ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক আমেরা আলমাস বলেন, সবুজার শরীরে বিভিন্ন জায়গায়, কোমরের নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (নবাগত) মোঃ আব্দুল আউয়ালের সাথে কথা বললে তিনি বলেন এ বিষয়ে এখনো কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। তাঁরপর আমি হাসপাতালে মহিলা পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজ নেব।
যৌতুকের জন্য গৃহবধু সবুজা আক্তারকে শারিরিক নির্যাতনের পর গাঁয়ে বিভিন্ন জায়গায় ক্ষত বিক্ষত করে মরিচের গুরা ও লবন শরীলে ছিটিয়ে দেন ও ধারালো দাঁ দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে বাম পায়ের তালুর উপরে চোট মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে দেন তার স্বামী, দেবর,ও শাশুরী। ঘটঁনাটি ঘটেছে (১০ই আগস্ট)সোমবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে, নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ইউনিয়নের পানিয়ালপুকুর কাচারীপাড়া গ্রামে।।
থানার এজাহার সূএে জানা যায়,দেড় বছর আগে পানিয়ালপুকুর কাচারীপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে সবুজা আক্তারের সাথে একই গ্রামের হাসিবুল ইসলামের ছেলে আব্দুর রউফের বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েকমাস পর সবুজার স্বামী, শশুর ,শাশুরীসহ শশুরবাড়ির লোকজন যৌতুকের দাবিতে গৃহবধু সবুজাকে শারিরিক ভাবে নির্যাতন করতে শুরু করে।
সর্বশেষ সোমবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে সবুজার স্বামী ও শশুর শাশুরী যৌতুকের দাবিতে সবুজাকে মারধর শেষে গায়ে মরিচের গুড়া ও লবন ছিটিয়ে দেয়,ও ধারালো দাঁ দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে বাম পায়ের তালুর উপরে চোট মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে দেন, সবুজার বাবা মা লোক মারফত মারামারির কথা শুনে এসে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে কিশোরগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করে দেন।
সরেজমিনে কিশোরগঞ্জ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় ওই গৃহবধু ব্যাথার যন্ত্রনায় ছটফট করছেন, এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন,যৌতুকের জন্য আমার স্বামী,শশুর, শাশুরী সোমবার সন্ধ্যার দিকে আমাকে প্রচন্ড মারধর করে আমার কোলের আট মাস বয়সী শিশু সন্তানকে কেঁড়ে নিয়ে আমার কাটা শরীরে মরিচের গুড়া ও লবন ছিটিয়ে দিয়েছে,এবং আমাকে তারা নিষ্টুর ভাবে অত্যাচার করেছে,তাই আমি আইনের কাছে তাদের বিচার চাই।
সবুজার বাবা শফিকুল ইসলাম সাংবাদিক দের বলেন,,, বিয়ের পর আমার জামাই রউফ যৌতুকের জন্য প্রায়ই আমার মেয়েকে মারধর করত। সর্বশেষ গত একমাস আগে রউফ আমার মেয়েকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলে আমি স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে আমার মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসি। কিন্তু পরে আমার জামাই বিভিন্ন কৌশলে আবারো আমার মেয়েকে তাঁর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন শুরু করেন।
নিতাই ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দুল খালেকের সাথে কথা বললে তিনি ঘঁটনার বিষয় স্বীকার করে বলেন, এর আগে আমি ওই গৃহবধুকে নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষার জন্য মেয়েটিকে তাঁর বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছিলাম।
কিশোরগঞ্জ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক আমেরা আলমাস বলেন, সবুজার শরীরে বিভিন্ন জায়গায়, কোমরের নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (নবাগত) মোঃ আব্দুল আউয়ালের সাথে কথা বললে তিনি বলেন এ বিষয়ে এখনো কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। তাঁরপর আমি হাসপাতালে মহিলা পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজ নেব।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ