1. admin@bijoyer-alo.com : admin :
  2. babul01713@gmail.com : Babul :
  3. videomidea.kabir@gmail.com : Kabir :
  4. armanik76@gmail.com : Manik :
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Mohaiminul :
  6. onikkhan300@gmail.com : Onik :
  7. reza.s061@gmail.com : S Reza :
  8. md.sazu4@gmail.com : Sazu :
শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৪৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ছাতকে ইউপি চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদের সমর্থনে মতবিনিময় সভা সৈয়দপুরে ছুরিকাঘাতে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই নিহত ভূরুঙ্গামারীতে ঘুষ নেওয়া সেই উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত অকালে চলে গেলেন বাংলা‌দেশ পু‌লি‌শের এআইজি (অপারেশন্স) সাঈদ তারিকুল হাসান সাতক্ষীরার তালায় গৃহবধূর আত্মহত্যা আজ ৩ ডিসেম্বর ঠাকুরগাঁও হানাদার মুক্ত দিবস ডোমারে মুফতি মাওঃ আব্দুল হাকিম আনসারী সাহেবের জানাজা সম্পন্ন। সেতাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুস সাত্তার এর রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল। ডোমারে সাবেক হুইপ আবদুর রউফ এর বিশ্বস্ত সহযোগি আজিজার মিয়ার জানাজা সম্পন্ন। মনপুরায় দেড় লক্ষ বাসিন্দা স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত

সাতক্ষীরার ঘোনায় হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামলের ভুঁতুড়ে চিকিৎসায় সর্বশান্ত হচ্ছে মানুষ!

নিজস্ব প্রতিনিধি:
  • রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩১

সাতক্ষীরায় এক হাতুড়ে ডাক্তারের ভুঁতুড়ে চিকিৎসার ফাঁদে পড়ে প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছেন এলাকার সাধারণ মানুষ। প্রতারণার এঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঘোনা ইউনিয়নের গাজীপুর গ্রামে। ওই গ্রামের খগেন কুমার সরকারের ছেলে হাতুড়ে ও গ্রাম্য ডাক্তার শ্যামল কুমার সরকার দীর্ঘদিন যাবৎ অসহায় মানুষের সাথে ভূয়া মেশিন দিয়ে রোগ নির্নয়ের নামে প্রতারণা এবং চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে সর্বশান্ত করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রচলিত আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার স্বীকৃত কোনো ধরনের পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন ডিগ্রি না থাকলেও গ্রামের সহজ সরল মানুষদের কাছে নিজেকে বড় ডিগ্রীধারী ডাক্তার পরিচয় দিয়ে রীতিমতো মানুষকে বোকা বানিয়ে সুকৌশলে প্রতারণা চালিয়ে যাচ্ছে শ্যামল সরকার। যা দেশের প্রচলিত আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
প্রতারক শ্যামল কুমারের বাহারি সাইনবোর্ড, প্রেসক্রিপশন প্যাড, রঙ বেরঙয়ের ভিজিটিং কার্ড ইত্যাদিতে ‘ডাঃ শ্যামল ’ লেখা দেখে চিকিৎসা করাতে গিয়ে প্রতারিত হয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে রোগী ও তাদের স্বজনরা। কোনোমতে টেনেটুনে এসএসসি পাশ করেই শ্যামল কুমার মানুষের কাছে নিজের পরিচয় দিচ্ছে বড় মাপের ডাক্তার হিসেবে। তারপর কোনভাবে রোগীদের আকৃষ্ট করে ভুয়া চিকিৎসা ও একপর্যায়ে ঔষধের লম্বা লিষ্ট সম্বলিত ব্যবস্থাপত্র রোগী ও তার স্বজনদের হাতে ধরিয়ে দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছেন মোটা অংকের টাকা।
এলাকাবাসী জানায়, প্রায় বছর খানেক আগে হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামলের ভুল চিকিৎসায় উত্তর মাহমুদপুর গ্রামের রহমুতুল্লাহ’র ছেলে নুর ইসলামের মৃত্যু হয়। সেসময় রোগ নির্নয়ের আগেই ওই নুর ইসলামের শরীরে পরপর তিনটি ভুল ইঞ্জেকশন পুশ করে হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামল। ইঞ্জেকশন দেয়ার মিনিট দশেকের মধ্যেই নুর ইসলামের মৃত্যু হয়। শ্যামলে অপচিকিৎসায় মৃত্যুরবণকারী নুর ইসলামের ছেলে সাইদুর রহমান বলেন, আমার বাবার মতো আর কারও বাবা এই ভুয়া ডাক্তারের অপচিকিৎসায় যেন আর মারা না যায়। তিনি এই ভুয়া ডাক্তার শ্যামলের দৃষ্টান্তমুলোক শাস্তির দাবী জানিয়ে আরো বলেন, আমার বাবাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিতে আমি প্রস্তুত ছিলাম, কিন্তু হাসপাতালে নেয়ার আগমুহুর্তেই ভুয়া ডাক্তার শ্যামল এসে বলেন, তোমার বাবারতো কিছুই হয়নি, আমি ইঞ্জেকশন দিলে কিছুক্ষনের মধ্যেই ভালো হয়ে যাবে। একথা বলেই সে আমার বাবার শরীরে পরপর তিনটি ইঞ্জেকশন পুশ করে। এরপর আমার বাবা বলতে থাকে, আমাকে কি ইঞ্জেকশন দিলে? মনে হচ্ছে আমার সারা শরীর পুড়ে যাচ্ছে। কিছুক্ষনের মধ্যে আমার বাবা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। এঘটনার পর থেকেই হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামলকে নিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়, তবুও এতোদিনে তার দৌরাত্ব বিন্দুমাত্র কমেনি।
কিছুদিন যেতে না যেতে শ্যামল আবারও শুরু করে তার প্রতারণার সেই ভুতুড়ে চিকিৎসা। দিনের পর দিন গ্রামের সহজ সরল মানুষদের মাথায় টুপি পরিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে সর্বশান্ত করছে সে। এতে করে একদিকে যেমন চিকিৎসা ব্যবস্থা প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে এবং মানুষ চিকিৎসকদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে, অন্যদিকে এলাকায় অপচিকিৎসার শিকার হয়ে অকালে রোগীদের মৃত্যুর সংখ্যাও ক্রমশ বাড়ছে। কি এক আজগুবি মেশিন এনে সেটিকে সর্বরোগ নির্নয়ের ডিজিটাল মেশিন বলে এলাকায় প্রচার দিয়ে রোগীদের আকৃষ্ট করছে হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামল।
শ্যামলের ওই এক মেশিনেই নাকি পাতলা পায়খানা থেকে শুরু করে মরণব্যাধী ক্যান্সার পর্যন্ত রোগ নির্নয় ও চিকিৎসা করা সম্ভব বলে রোগীদের রীতিমতো ঘোল খাওয়াচ্ছেন প্রতারক শ্যামল।
শ্যামলের কসাইখানায় রোগীদের ভাল-মন্দের কোনো মুল্যনেই, তার কাছে চিকিৎসাটি হয়ে উঠেছে রোগী মেরে টাকা কামানোর কারখানা।
এব্যপারে হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামলের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তিনি স্বীকৃত কোনো প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা না নিলেও, কোনো এক অভিজ্ঞ ব্যক্তির সংস্পর্শে থেকে কিছু চিকিৎসা জ্ঞান অর্জন করে মানুষকে ধোঁকা দিয়ে যাচ্ছেন।
এলাকাবাসী আরো জানায়, শ্যামলের এক কাকা ভারতে থাকেন এবং তিনি নাকি একজন চিকিৎসক। চেম্বারে রোগী আসলেই শ্যামল ওই কাকার কাছে ফোন দেন এবং তার পরামর্শ মোতাবেক ভারতীয় ঔষধের আদলে দেশি ঔষধের প্রেসক্রিপশন করে দেন। সীমিত জ্ঞান দিয়ে আসলেই কি শ্যামলের পক্ষে রোগীদের মানসম্মত চিকিৎসা দেয়া সম্ভব? সে প্রশ্ন এখন সর্বস্তরের মানুষের মনে। তাছাড়া শ্যামলের প্রতারণার শিকার হয়ে বহু রোগী দিনের পর দিন অপচিকিৎসায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন বলেও দাবী স্থানীয়দের।
সাংবাদিক পরিচয় গোপন রেখে শ্যামল কুমারের কাছে তার চিকিৎসা পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার এই মেশিন দিয়ে মানুষের সকল রোগ নির্নয় করা সম্ভব। কার শরীরে কি রোগ আছে তা নিমিষেই এই মেশিন দিয়ে সনাক্ত করা সম্ভব। এটি জার্মানি থেকে আনা মেশিন। বড় বড় এমবিবিএস ডাক্তাররা যে রোগের চিকিৎসা দিতে পারে না আমি এই মেশিনে দিয়ে রোগ নির্নয় করে সেসব রোগীর চিকিৎসা ও ঔষধ দিতে পারি। কিন্তু তার এই জাদুর মেশিনের নাম জানতে চাইলে সেটিও বলতে ব্যার্থ হয় শ্যামল।
চিকিৎসার নামে শ্যামলের এই অপচিকিৎসা বেশিদিন চলতে থাকলে প্রতারিত ও সর্বশান্ত হয়ে বিনা চিকিৎসায় রোগীদের মৃত্যুবরণের হার ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকবে। তাই অবিলম্বে প্রতারক ওই হাতুড়ে ডাক্তার শ্যামলকে আইনের আওতায় আনার জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও সিভিল সার্জনসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সর্বস্তরের মানুষ।

নিউজটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরও খবর পড়ুন

আজকের দিনপঞ্জিকা

December ২০২০
Fri Sat Sun Mon Tue Wed Thu
« Nov    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১