Main Menu

অধিদপ্তরে তলব করলো,পঞ্চগড়ের জাল সনদধারী শিক্ষকদের

সাইদুজ্জামান রেজা,পঞ্চগড়ঃ

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে মল্লিকাদহ বি,এন,উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন যাবত জাল সনদে শিক্ষকতার বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সরেজমিন পরিদর্শন ও সনদ যাচাই-বাছাই করে প্রমাণিত হলেও অভিযুক্ত দুই শিক্ষক অদ্যাবধি বহাল তবিয়তে আছেন ও বেতন উত্তোলন করছেন।

আর এই ঘটনার তদন্তের উদ্যোগ নিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ঢাকা। গত ১৭ নভেম্বর মাধ্যমিক (১) শিক্ষা কর্মকর্তা চন্দ্র শেখর হালদার সাক্ষরিত এক চিঠিতে বাবুল চন্দ রায় ( সমাজ বিজ্ঞন ইউডেক্স নম্বর ১০৭১৯০৬) দীপেন্দ্র নাথ রায়( বিজ্ঞান ইনডেক্স নম্বর ১০৬৯০৩১) দিপালী রানী রায় হিন্দু ধর্ম ইনডেক্স নম্বর 1105784 এই তিন জন অভিযুক্ত শিক্ষকের আবার তদন্তের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ঢাকা নিয়োগ প্রক্রিয়ার সকল কাগজপত্র নিয়ে উপস্থিত থাকার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন । বিষয়টি অবহিতকরণ ও উপস্থিতি নিশ্চিতকরণের জন্য জেলা শিক্ষা অফিসারকে অনুরোধ করেন।

অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের জাল সনদ প্রায় দেড় বছর আগে ঢাকা সি আই ডি রমনা ইউনিটের পুলিশ পরিদর্শক মাইনুল ইসলাম উল্লেখিত দুই শিক্ষকের বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) বরাবর প্রেরণ করেন। পরে এনটিআরসিএ জানায় সনদগুলো সঠিক নয়।
সেই প্রেক্ষিতে সি আই ডির পরিদর্শক তার প্রতিবেদন দাখিল করেন। শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও বরাবরও পাঠানো হয়। উপ-পরিচালক মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার রংপুর আঞ্চলিক কার্যালয়ের পাঠানো প্রতিবেদনে শিক্ষকদ্বয়ের বেতনের টাকা ব্যাংকে জমা দেওয়ার কথা বলা হলেও কোন নথি নেই জেলা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে ।
পরিদর্শন ও নিরীক্ষা প্রতিবেদনে অব্যাহতিসহ অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের চাকরিতে যোগদানের তারিখ থেকে পরিদর্শনের তারিখ পর্যন্ত উত্তোলিত বেতনের সমুদয় টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়ার সুপারিশ করেন। কিন্তু পরিদর্শন ও নিরীক্ষা প্রতিবেদনের সেই সুপারিশ আজও বাস্তবায়ন হয়নি।

দেবিগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সলিমুল্লাহ বলেন, বিষয়টা শিক্ষা অধিদপ্তর তদন্ত করবেন, কি ব্যবস্থা নিবেন ঐ খান থেকে নিবেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক রংপুর অঞ্চল তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া প্রসঙ্গে জানান আমাকে লিখিত কোন দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক রংপুর অঞ্চলের উপ-পরিচালক আখতারুজ্জামান মোবাইল ফোনে জানান,জাল সনদে শিক্ষকতার বিষয়ে আমার জানা আছে বিষয়টি দেবীগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *