Main Menu

দু’দেশের সীমান্ত বাণিজ্য সচল করতে কেন্দ্রের নির্দেশ।। মানছে না রাজ্য সরকার

ভারতের পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে বাংলাদেশের বেনাপোল বন্দরের সাথে অবিলম্বে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য চালু করতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ নিতে কড়া হুঁশিয়ারি করেছে ভারতের কেন্দ্রীয সরকার।গতকাল বুধবার দুপুরে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহাকে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা।চিঠিতে অবিলম্ভে দু’দেশের মধ্যে আমদানি রফতানি বাণিজ্য সচল করার জন্য বলা হয়েছে। মুখ্যসচিব রাজীব সিনহাকে স্পষ্ট বলা হয়েছে যে অবিলম্বে সীমান্ত বাণিজ্যের পথ খুলে দেওয়ার জন্য দ্রত পদক্ষেপ গ্রহন করতে। সেই সঙ্গে এ ব্যাপারে দ্রুত রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশও দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

পেট্রাপোল বন্দর সুত্রে জানাগেছে, ২৪শে এপ্রিল পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ আমদানি-রফতানি বাণিজ্য চালু করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে দু’দেশের বন্দর,কাস্টমস ও ব্যবসায়ী নেতারা বেনাপোল চেকপোষ্ট নো-ম্যান্সল্যান্ডে দফায় দফায় বৈঠক করে গত ৩০শেএপ্রিল ও ২রা মে দুই দিন দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্য চালু থাকে। এসময় ১৫ ট্রাক বিভিন্ন ধরনের জরুরি পন্য বাংলাদেশে প্রবেশ করে।পরবর্তীতে গত রবিবার সকালে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের অভিযোগ এনে বাংলাদেশের সাথে আমদানি বাণিজ্যে বন্ধ রাখার জন্য ভারতের বনগাঁ থেকে পেট্রাপোল বন্দর এলাকা পর্যন্ত স্থানীয় গ্রামবাশী ও বন্দর শ্রমিকরা ভারতের যশোহর রোড অবরোধ করে আন্দোলন করতে থাকে। যার ফলে কার্যতঃ দুদেশের মধ্যে বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যায়।

কেন্দ্রের দাবি,পশ্চিমবঙ্গ সরকার নতুন করে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য চালুর উদ্যোগ নেয়নি। ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের সিএন্ডএফএজেন্ট স্টাফ ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক শ্রী কার্তিক চক্রবর্তী কেন্দ্রীয় সরকারে চিঠির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সীমান্ত বাণিজ্য শুরুতে রাজ্য পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় সরকার। সেই কারণেই পেট্রাপোলে স্থলবন্দরে দ্রুত আমদানি-রফতানি বাণিজ্য চালু করার ব্যবস্থা নিতে রাজ্যকে চিঠি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব। মহামারী আইনের আওতায় পশ্চিমবঙ্গ সীমান্তে দিয়ে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য চালুর ব্যাপারে কেন্দ্র নির্দেশিকা জারি করে গত ২৪ শে এপ্রিল মুখ্যসচিবকে চিঠি দিয়ে জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা। পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে অবিলম্বে পেট্রাপোল সীমান্তে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য চালু করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব।

ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত সংবাদ ছাপা হয়েছে বলে তিনি জানান। এব্যাপারে জানতে চাইলে বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক মামুন কবির তরফদার বলেন,ভারত যদি পণ্যচালান রপ্তানি করে এবং বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা যদি শুন্যরেখায় গ্রহন করে তাহলে বন্দর কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে তাদের সকল প্রকার সহযোগিতা করা হবে। বেনাপোল কাস্টমসের কমিশনার বেলাল হোসাইন চৌধুরী বলেন,দেশে সাপ্লাইচেন ঠিক রাখা ও রমজানে পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় ও পঁচনশীল পণ্যের আমদানি প্রবাহ ঠিক রাখা জরুরী। তাই আমরা দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য শুরু করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছি। পেট্রপোলের সাথে দফায় দফায় আলোচনা করেছি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সতর্কতার সাথে কাজ করার জন্য বলেছি। পেট্রাপোল শুরু করলে আমরা ও বন্দর সবসময়ের জন্য প্রস্তুত।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *